শুক্রবার, অক্টোবর ২২

বাংলাদেশ ও অন্যান্য কবিতা : মিসবাহ জামিল

0

বাংলাদেশ


আমি এক চিঠি
পোরা আছি খামে
যেই খাম পরিচিত
বাংলাদেশ নামে


ঈদ


দামি শাড়ি কিনে দিলে আম্মা বেজার হন। তার মুখে কালনি জমে। এত টাকা খরচ করার কী দরকার বাবা? আমার তো মেলা শাড়ি আছে। তুই টাকা সঞ্চয় কর। ভবিষ্যতের চিন্তা কর বাবা।… একদিন আম্মার হাতে কয়েকটি চকলেট এনে দিলাম। আমি কি শিশু?—বলে আম্মা হাসলেন খুব। মেঘের কোলে রোদ হাসার মতো। আমার আনন্দ হলো। আনন্দ মানে ঈদ। আম্মা অস্থায়ী জিলহজ-শাওয়াল। যখন তখন আমার ঈদ হয়ে যায়।


দুঃখ


আমি যেন জালজীবীর জালে ধরা পড়া মাছ। কড়াই যার পরিণতি। দুঃখ উন্দালে থাকা তপ্ত কড়াই। আমি পরিত্রাণের চেষ্টায় কড়াইয়ের তেলে সাঁতার কাটতে কাটতে ভাজা হয়ে যাচ্ছি…


অসুখ


আমাকে বক্ষবন্ধনীর মতো চেপে ধরেছে অসুখ।


গান


জামাতাকে যৌতুক না দিতে পেরে বুকের ভেতর কু ডাকে ফজর আলীর। এই কু ডাককে তার মনে হয় সংসার ভাঙার গান। অনেক ভেবেচিন্তে অবশেষে ভিটেমাটি বিক্রি করে জামাতাকে যৌতুক দেন। মেয়ের সংসার টিকিয়ে রাখার জন্য। কনের পিতার কাছে যৌতুক দেওয়াই সংসার রক্ষার গান।

শেয়ার করুন

লেখক পরিচিতি

জন্ম ১ সেপ্টেম্বর ১৯৯৯। দোয়ারাবাজার, সুনামগঞ্জ। বই: রাশেদা মোকাম (প্রকাশিতব্য)

error: আপনার আবেদন গ্রহণযোগ্য নয় ।