শনিবার, এপ্রিল ২০

সাকিব শাকিলের কবিতাভাবনা ও কবিতা

0

Sakib Sakilকবিতা আমার কাছে কবির কল্পনাশ্রিত হৃদয়েরই কথা


কবিতার সংজ্ঞায়ন জীবনের বহুরূপী যাপনের মাধ্যমে সংজ্ঞায়িত হয়েছে কালে কালে। ব্যক্তির নিজস্ব বোধ, উপলব্ধি, সমাজিক, অর্থনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গি যেহেতু ক্রমশ পরিবর্তীত হচ্ছে সেক্ষেত্রে কবিতার নির্দিষ্ট সংজ্ঞা কি হতে পারে?

তবু কবি তাঁর অন্তরে কবিতার এক কল্পমূর্তী তৈয়ার করে, যার লিখিত রূপ উঠে আসে কবিতায়। কবিতা আমার কাছে কবির কল্পনাশ্রিত হৃদয়েরই কথা। এবং সে কল্পনা ব্যক্তি আশ্রিত সমাজের টানাপোড়েন, দ্বন্দ্ব, সংকট, নির্দিষ্ট ও অনির্দিষ্টতার অন্তরবয়ান। যাকে ধরা যায় না কিন্তু উপলব্ধি করা যায় যে—এতো আমরই কথা, আমারই জীবনের যাপন। তবে সে বয়ান ন্যারেটিভ বিবর্জিত, একধরণের বুদ্ধিবৃত্তিক দর্শনের প্রক্রিয়া, যা প্রকাশিত হয় অন্যন্য সাধারণ মানুষের চিন্তাপদ্ধতির চেয়ে প্রখর রূপে।

কবির ভবিষ্যতে নির্ধারণ কে করে? এককথায় বলা যায় কবির ভবিষ্যত নির্মাণ তাঁর কবিতার মধ্যই নির্মানাধীন প্রক্রিয়া। পৃথিবীর সকল স্থাপনা ধ্বংস হয়ে গেলেও কবির রচনা থেকে যায়৷ আজও হাজার বছর আগের হোমারের ইলিয়াড পড়া হয়। কবির ভবিষ্যত তো এইটাই যে তাঁর রচনার মতো অনন্তকাল বহমান। একমাত্র কবিতার নিবিষ্ট চর্চাই একজন প্রকৃত কবির লক্ষ্য যা তাঁর ভবিষ্যতে হিসেবে মনে করি।

সকল কিছুর মূল্যায়ন যেহেতু মানুষেরই তৈয়ার তাই মূল্যায়নের মধ্য দিয়েই মানুষের অবস্থান নির্দিষ্ট হয়। আজ থেকে ২০ বছর কেনো আরও অনেক বছর পর শুধু কবিতার পথে হাঁটতে চাই, জীবনের শেষপর্যন্ত কবিতা চর্চার মধ্য দিয়ে অতিবাহিত করতে চাই।

 


দেহ পালিত সাপ ও অন্যান্য কবিতা


মৌসুমী হাওয়ার অসুখ


বিদগ্ধ দুপুরে পাখিদের দুঃখী ডানায় মৃত্যুর মতো ওম।
কোন ভেলা ভালোবেসে বেহুলারা ঘর ছাড়ে নিমগ্ন জলে;
কোমল গন্ধ কার স্নেহের চাদরে ঝরে যায় অসুখী মৌরিফুল;
অসময়ে বাড়ে মৌসুমি হাওয়ার অসুখ ।

বাঁশ বাগানের মাথার উপর একাকী দাঁড়কাক
কাজলাদিদি আজ ঘরে নেই।


দেহ পালিত সাপ-১


লাউ ডগার শরীরে মিশে গেছো কবে? কবে উড়ে গেছো হাটখোলার ম্যাজিশিয়ানের হাত থেকে? দূরে তুমি উড়ে যাও, ঘুরে দেখি এপাশে শূন্য। তবু শূন্যতার ভেতর অনেক কোলাহল।

অনেক গান বেজে যাচ্ছে শূন্যতার পথে পথে। রেড কার্পেটে নেচে যাচ্ছে কে? তুমি নাকি তোমার মন?


দেহ পালিত সাপ-২


অসহ্য অপেক্ষা শেষ হয়ে গেছে আজ। হারিয়ে যাওয়ার আগেই নিখোঁজ হয়েছে কেউ!

রাতের শরীর থেকে হারিয়েছে শাদা কবুতর। আমার ভেতর হারিয়েছ তুমি। জীবন থেকে পালিয়েছে শৈশব। জীবন পুড়ে যাচ্ছে ফুটন্ত হাঁড়িতে–আর তার পিঠে উড়ে যাচ্ছে সময়ের আয়ু। নিখোঁজ মানুষগুলো আকাশের তারা হয়ে বাঁচে, যেন পরাহত হাওয়ায় জ্বলে ওঠে গ্লুমি জোনাকির রাত।

আর আমাদের প্রতিটি মুহূর্ত থেকে দূরে সরে যায় একেকটি মেমরেবল ডে!


দেহ পালিত সাপ-৩


পরাভূত সায়াহ্নের দিকে চেয়ে চেয়ে ভাবি

নিবিড় জড়িয়ে ধরে আমাদের হৃদয়ের মোহ
লতার গায়ে পেঁচানো কোনো বনের গোখরা
সম্পর্কের দূর তাঁবুতে শুকে নেয় পরিচিতের ঘ্রাণ
কথার ছোবলে দেখি তারও ভাষা হয়ে ওঠে বিব্রত।

বিব্রত ময়ূরের বেশে আর কতোকাল যাব
মিথ্যা দাঁড়াব আর কতোবার লাইট ক্যামেরার সামনে
ক্ষতকাল পেরিয়ে আমি কি লুকাব দূর কোনো আগামীকালে?
পরাভূত সায়াহ্নের দিকে চেয়ে চেয়ে ভাবি
খেলনা পিস্তলের ট্রিগার চেপে
আমিও কোনো এক জাতীয় ঘটনার সাক্ষী হবো।


দেহ পালিত সাপ-৪


পাখিওয়ালা তুমি ডিম থেকে বের হয়ে উচ্ছন্নে যাচ্ছ শৈশবের হাত ধরে। তুমি খাঁচা হয়ে যাও। যেভাবে পিঠাওয়ালা সন্ধ্যার দিকে ডিমপিঠার ভেতর হারিয়ে গেছে। যেভাবে বিকেল হারিয়ে গেছে রাতের বাড়িতে, তুমি সেভাবে, হ্যাঁ, সেভাবে জলের ভেতর নষ্ট করো পানি!

তুমি চাকুবিদ্যা রপ্তানি করো চাকুফুলের পথে। পথের মনের ভেতর তুমি বাহন হয়ে যাতায়াত শুরু করে দাও। ও পাখিওয়ালা তুমি কখনও জীবনকে দেখেছো পাখি হতে? পাখিকে কখনও দেখেছো জীবন হতে?

তুমি কবরের আওয়াজ শোনো, কুকুরের মন নিয়ে।
তুমি সৃষ্টি হও, তুমি ধ্বংস হও
হয়ে ওঠো কুন ফায়া কুন

শেয়ার করুন

লেখক পরিচিতি

জন্ম ও বেড়ে ওঠা সিরাজগঞ্জ জেলার যমুনাপাড়ের গ্রাম রান্ধুনীবাড়ীতে। রসায়ন বিষয়ে স্নাতক শেষ বর্ষে অধ্যায়নরত। সম্পাদনা করছেন লিটলম্যাগ ‘শব্দ মিছিল’। প্রকাশিত কবিতার বই: ‘আঙুলের ডগায় শীত’ (২০২০), ‘দেহ পালিত সাপ’ (২০২১)।

error: আপনার আবেদন গ্রহণযোগ্য নয় ।