বৃহস্পতিবার, মে ৩০

ভাসিয়ে দেবার ছলে : চরৈবেতি সিসিফাস

0

১.
চিরতা ফুলের সাথে তোমার অরূপ ভেসে গেছে
ফুল বিজু উৎসবের ভোরে,
বুকের গভীর কোণে যে দহন অনন্ত সকাল ধরে
জ্বলে ধিকি ধিকি; তুমি কি বুঝেছ তার আধুলি বা সিকি?
চিরতার সাথে যায় কলার বরক আর তীব্র কলহগুলোন
তোমার আমার নিত্য সমাচার…

 

২.
সাদা আর কটকটে লালে আজ উৎসবে জমে গেছে তঞ্চইঙ্গ্যা যুবতীর রং
গালে টোল পড়া ঠোঁটে ঢং পৃথিবীর সমস্ত প্রেমের গায়ে ছিটিয়ে দিয়েছে মোহ,
নদীর শীতল বুকে চলো আজ ঢেলে দিই বিগত সনের সব ক্ষোভ
কলাপাতা সাথে করে নিয়ে গেছে ইশকুলের যত খুনশুঁটি…

 

৩.
গত শতকের যত অবহেলা ঝিরির স্রোতের সাথে ছুটে যায় সমতলে।

পাহাড়ের ঘামফোঁটা একে একে জমে প্রপাতের ধারা হয়ে ঝরে। তোমার নাকের ফুল আমার কাস্তের সাথে ভেসে গেল জমির ফসল, হালের বলদ আর যত গাই ও বাছুর ছুটতে ছুটতে পৃথুলা মেঘের সাথে উড়তে থাকে সংক্রান্তির রাতে।

 

৪.
পানকৌড়ি মুখ বাড়িয়ে নদীর দিকে যাচ্ছে উড়ে এরোপ্লেনের তীব্রগতি। লোকালবাসের কালুরঘাটের গ্যাঁটধরা এক ক্লান্ত বকের দৃষ্টিও সেই জলের ভেতর। সোমালিয়ার জলদস্যুর সমানতালেই জলের দিকেই গভীর ধ্যানে তীক্ষ্ণদৃষ্টি। জলেই তারা জীবন খোঁজে, জলই জীবন যেমন পড়ি পাঠ্যবইয়ে। এই জীবনে অন্যজীবন ভাসে ডোবে…

 

৫.
টোয়েন্টি নাইন খেলতে খেলতে দুইহাতে প্রার্থনা জেগে ওঠে। বয়স বাড়লে প্রার্থনার সময় কমে আসে, তিন তাসে। সাথে টাকাকড়ি কিছু আসে। এমন আভাসে যায় ভেসে শতাব্দীর সব রাত।

দূরে, খুব ভোরে সুবেহ সাদিকের মোরগ ডেকে উঠলে দেখি, খালি হাত। মাঠে মারা গেল সারারাত…

শেয়ার করুন

লেখক পরিচিতি

কবি ও অনুবাদক। জন্ম চট্টগ্রাম। লেখালেখি: কবিতা ও অনুবাদ।

error: আপনার আবেদন গ্রহণযোগ্য নয় ।